01999576787  |    service@ofelafoods.com  
  Close Home About us Products Blog How to order Login Signup


Blog / মধু জমে গেলে ভেজাল নাকি খাঁটি?

মধু জমে গেলে ভেজাল নাকি খাঁটি?


মধু জমে গেলে ভেজাল নাকি খাঁটি?

মধু ঘন তরল পদার্থ, যা মৌমাছি নামক পতঙ্গ দ্বারা তৈরী। মধু মৌ মাছিরা সংগ্রহ করে না। উৎপাদ করে। মৌমাছি ফুল থেকে ফুলের রস সংগ্রহ করে চাকে থাকা মৌ মাছির মুখে দিলে, তা মৌ মাছির পেটে থাকা এনজাইমের সাথে মিক্স হয়ে তৈরি হয় মধু। মধু অত্যান্ত সুস্বাদু পানীয়। যা পৃথিবীতে থাকা সকল পানিয় থেকে উত্তম। কিন্তু মধু অনেক সময় জমে যায়, এটা নিয়ে অনেক তর্ক ও বিতর্ক আছে। আসুন আজ জানবো মধু কেন জমে?

মধু হলো একটি ঘন শর্করা দ্রবণ। সাধারণত এতে ৭৫% এর বেশি শর্করা বা কার্বোহাইড্রেট ও ২৫% এর কম পানি থাকে। স্বাভাবিকভাবে পানিতে যে পরিমাণ চিনি দ্রবীভূত হয়, মধুতে তার চেয়ে অনেক বেশি চিনি থাকে।

অতিরিক্ত মাত্রার চিনি দ্রবণকে অস্থিতিশীল করে এবং সে ভারসাম্য রক্ষা করতে চায়। যার ফলে মধু জমতে শুরু করে। যদি কোনো মধুতে গ্লুকোজের পরিমাণ ফ্রুক্টোজের চেয়ে বেশি থাকে তখন সে মধু অতি দ্রুত দানাদার হয়। যেমন- সরিষা ফুলের মধু। এখানে পানি থেকে গ্লুকোজ আলাদা হতে শুরু করে আর গ্লুকোজ স্ফটিক আকারে জমতে থাকে এবং দ্রবণটি আস্তে আস্তে সাম্যাবস্থার দিকে যেতে থাকে।

মধু জমে গেলে রঙ পরিবর্তন হয়ে সাদা দানাদার হয়ে যায় কিন্তু গুনাগুন ঠিক থাকে। মধু জমে যাওয়া স্বাভাবিক ও প্রাকৃতিক ঘটনা। মধু জমে যাওয়ার এ প্রক্রিয়াকে স্ফটিকায়ন বলে। মৌচাক থেকে আলাদা করার পর মধু দ্রুত জমে, মৌচাক থেকে আলাদা করার পর মধু যত দ্রুত জমে, চাকের ভেতর মোমের কোষে থাকলে তত দ্রুত জমে না।

মধু যদি না জমে তাহলে বলতে হবে মধুতে ভেজাল আছে, কারণ প্রতিটি মধুর স্ফটিকায়নের একটা নির্দিষ্ট সময় আছে। কিন্তু আমাদের ক্রেতারা অনেকেই আছেন তাঁরা মনে করেন, মধু জমে গেলে ভেজাল। এটা আসলে ভুল ধারণা। আবার অনেকেই বলেন জমা মধু খেতেই নাকি ভাল লাগে, হ্যাঁ এটা আমারও কাছে মনে হয়।

সংগ্রহের উপর ভিত্তি করে মধু বিভিন্ন হারে স্ফটিকায়িত হয়। এ হার ১-২ মাস থেকে ২ বছর হতে পারে। কারণ, মধুর শর্করাতে প্রধানত থাকে - গ্লুকোজ ও ফ্রুক্টোজ। গ্লুকোজ ও ফ্রুক্টোজের পরিমাণ একেক মধুতে একেকরকম থাকে। সাধারণভাবে ফ্রুক্টোজ ৩০-৪৪% এবং গ্লুকোজ থাকে ২৫-৪০%। যে মধুতে গ্লুকোজের দ্রবণীয়তা কম, এটি স্ফটিকায়ন হয় দ্রুত।

যে মধুতে গ্লুকোজ বেশি জমে তাড়াতাড়ি যেমনঃ সরিষা ফুলের মধু। যে মধুতে গ্লুকোজ কম এবং পানি বেশি সেটা জমে ধীরে ধীরে যেমনঃ সুন্দরবনের মধু।

কিছু মধু পুরাপুরি জমে আবার কিছু মধু অল্প পরিমানে জমে।

অফেলা মধুর বৈশিষ্ট্যঃ

১। অফেলা মধু বি এস টি আই অনুমোদিত।

২। ১০০% প্রাকৃতিক এবং র হানি (Raw Honey)

৩। সরাসরি উৎপাদন ক্ষেত্র থেকে সংগ্রহ করা।

৪। বিক্রিত পণ্য ফেরত নেয়।

৫। ক্রেতাগণ যেন সন্তুষ্ট থাকে সেদিকে খেয়াল রাখে। 

৬। দ্রুত ডেলিভেরি দিয়ে থাকে। 

 

খাঁটি মধু পেতে কল করুন 01999576787 অথবা ক্লিক করুন  www.ofelafoods.com

 আরও পড়ুনঃ

মধুকে প্রকৃতিক সোনা বলা হয় কেন?

মধুর উপকারিতা কি কি?

সুন্দরবনের মধু পাতলা হয় কেন?



QUICK CONTACT


Mahamuda Baper Bari, Rahattarpul, K.B. Aman Ali Road,Chawkbazar, Bakolia, Chattogram.

 

Email: service@ofelafoods.com  

Hotline: +880 1999576787

 

CONNECT WITH US





Payment Option

© 2019-2020 ofelafoods.com All rights Reserved.
Developed By Skill Based IT

×

Our Cart

Empty Shopping Cart Please Add product

Order Now

ITEM: